নিজস্ব সংবাদদাতা: সময় টেলিভিশনের বিশেষ প্রতিবেদক সাংবাদিক রতন সরকারের কিছু হলে তার দায় প্রশাসনকে নিতে হবে বলে জানান রংপুর সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র মাহমুদুর রহমান টিটু। একই সাথে শত্রু পক্ষের দ্বারা কিছু হলে তার দায়ভার সিটি কর্পোরেশন বহন করবেনা বলেও জানান তিনি। রবিবার (২৭ এপ্রিল) দুপুর ১ টায় সিটি পরিষদের আয়োজনে রসিক সম্মেলন কক্ষে মামলার ৬০ ঘন্টা অতিবাহিত হলেও রতন সরকার গ্রেফতার না হওয়ায় পুলিশ প্রশাসনের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি। সংবাদ সম্মেলনে রসিক প্যানেল মেয়র মাহমুদুর রহমান টিটু প্রশাসনকে আগামী ২৪ ঘন্টার আল্টিমেটাম দিয়ে বলেন, গত ২৫ এপ্রিল রাতে সিটি পরিষদের ৩৩ জন সাধারণ এবং ১১ জন মহিলা কাউন্সিলর যৌথভাবে কোতোয়ালি থানায় স্বশরীরে গিয়ে পুলিশের কাছে সাংবাদিক রতন সরকারকে গ্রেপ্তারের দাবি জানাই। কোতোয়ালি থানার অফিসার ইনচার্জ ২৬ এপ্রিল সন্ধ্যার মধ্যে তাকে গ্রেফতারের জন্য আমাদেরকে প্রতিশ্রুতি দিয়েও তাকে গ্রেফতার করেননি। অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে সুনির্দিষ্ট আইনে মামলা হওয়ার পরেও সাংবাদিক রতন সরকারকে গ্রেপ্তার না করার বিষয়টি রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের ব্যর্থতা। যা সমাজের প্রত্যেকটি মানুষকে উদ্বিগ্ন করেছে। তারাও শংকিত রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের কাছে ন্যায়বিচার পাওয়া নিয়ে। তিনি আরও বলেন, আজ এই সংবাদ সম্মেলন থেকে বলতে চাই আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে সাংবাদিক রতন সরকারকে গ্রেফতার করা না হলে রংপুর সিটি পরিষদ লাগাতার আরো কঠিন কর্মসূচি দিতে বাধ্য হবে। উল্লেখ্য, রতন সরকারের ব্যক্তিগত ফেসবুকে গত ২৩ এপ্রিল রসিক মেয়র ও সিটি কর্পোরেশনকে জড়িয়ে একটি পোস্ট করেন। যা মিথ্যাচার, বানোয়াট ও মানহানিকরের অভিযোগ এনে মেয়র পরের দিন ২৪ এপ্রিল ডকুমেন্ট সংযোজন করে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে আরপিএমপি কোতোয়ালি থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। তার মামলা নং ৫৫। এদিকে রংপুর জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিষয়ক সম্পাদক রতন সরকারের বিরুদ্ধে মেয়রের করা মামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে প্রেস বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে সংগঠনের জেলা কমিটির সভাপতি ও সম্পাদক। জেলা দপ্তর সম্পাদক তৌকির হাসান স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে রতন সরকারের নামে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারেরও দাবি জানান। সেই সাথে সাংবাদিক রতন সরকারের কিছু হলে তার দায়ভার মেয়রকেও বহন করতে হবে বলেও উল্লেখ করা হয় বিবৃতিতে।