‘৭০ হাজারের নিচে ওয়াজ করি না, টাকা এক সপ্তাহ আগে দিতে হবে’

- Advertisement -

নিজস্ব প্রতিবেদক:
পঞ্চগড় জেলার দেবীগঞ্জ উপজেলার কালীগঞ্জ হাফেজি মাদরাসার উদ্যোগে প্রতি বছর ওয়াজ মাহফিল করে মাদ্রাসা কমিটি। এ বছর ওয়াজে স্বনামধন্য বক্তা আনার দায়িত্ব মাদ্রাসার শিক্ষকদের দেওয়া হয়েছিল। ওই মাদ্রাসার শিক্ষক হাফেজ তাহের ‘স্বনামধন্য’ বক্তা মাওলানা ইলিয়াছুর রহমান জিহাদীকে আনার ইচ্ছা পোষণ করেন।

হাফেজ তাহের জানান- ‘মাওলানা ইলিয়াছুরের সাথে যোগাযোগ পেতে শিক্ষক তাহের স্থানীয় রহিদুল হাজী নামের একজনের নিকট যান। পার্শ্ববর্তী গড়েয়া হাট এলাকায় রহিদূল হাজী তিন তিন বার মাহফিলে মাওলানা ইলিয়াছুরকে নিয়ে আসার সেই অভিজ্ঞতা রয়েছে।’

হাফেজ তাহের সাথে বায়নার জন্য কিছু টাকাও নিয়ে যান রহিদুলের কাছে।

হাফেজ তাহের জানান- ‘তবে দূঃখজনক হলেও সত্য রহিদুল হাজী মাও. ইলিয়াছুরের সাথে কন্টাক করলে তিনি বলেন- টাকা লাগবে ৭০ হাজার তাও আবার এক সপ্তাহ আগে পরিশোধ করতে হবে। এতো টাকার চাহিদা শুনে ক্ষুব্ধ হয়ে হাফেজ তাহের ফেরত আসেন এবং ইলিয়াছুরকে দিয়ে মাহফিল করাবেননা মর্মে সিদ্ধান্ত নেন।”

পরে হাফেজ তাহের ফেরত এসে বিষয়টি কমিটিকে অবগত করলে বিষয়টি জানাজানি হয়। গত ২৮ শে অক্টোবর রাত ৯ টায় ইলিয়াছুর রহমান জিহাদীর পরিচিত রহিদুল হাজী সাহেবকে ফোন করে ইলিয়াছুর রহমান জিহাদীর কন্টাক্ট নাম্বার সংগ্রহ করে দেন তিনি।

কালীগঞ্জ হাফেজি মাদরাসা কমিটি সূত্র জানায়- পরে মাদ্রাসার কমিটির পক্ষ থেকে ফোন দিয়ে মাহফিল প্রসঙ্গে কথা বলা হয়। এতে টাকার কথা বলতেই ইলিয়াছুর সাফ জানিয়ে দেন- যাতায়াতের জন্য বিমান ভাড়া আলাদা দিয়েও ৭৫ হাজার টাকা লাগবে নচেৎ তিনি আসবেননা। তাও আবার সাতদিন আগে দিতে হবে!

এ বিষয়ে ইলিয়াছুর রহমান জিহাদী-র সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।

এদিকে বিষয়টি জানার পর স্থানীয়দের মধ্যে ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে। সচেতন মহল মনে করছে- টাকার প্রতি একজন বক্তার আচরণ এমন হয়, তাহলে তাদের আলোচনা শুনে সাধারন মানুষের কি উপকারে আসবে?

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

Leave A Reply

Your email address will not be published.