রংপুরে স্কুলছাত্রীকে গণধর্ষণ, পুলিশ সদস্য বহিষ্কার

- Advertisement -

রংপুর প্রতিনিধি:
রংপুরের হারাগাছে স্কুলছাত্রী গণধর্ষণ মামলার আসামি মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) রায়হানুল ইসলামকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। সোমবার দুপুরে ডিবি পুলিশের ওই এএসআইকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়।

এরআগে রোববার রাতে স্কুলছাত্রীকে গণধর্ষণের অভিযোগে ওই পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে আরপিএমপির হারাগাছ থানায় মামলা করে ভুক্তভোগীর পরিবার। মামলাটি পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনে (পিবিআই) স্থানান্তর করা হয়েছে।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীকে উদ্ধার করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে নেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় সহায়তার অভিযোগে মেঘলা ও সুরভি নামে দুজনকে আটক করেছে পুলিশ।

জানা যায়, রংপুর মহানগরীর হারাগাছ থানার ময়নাকুঠি কচুটারি এলাকার নবম শ্রেণির এক ছাত্রীর সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন মেট্রোপলিটন ডিবি পুলিশের এএসআই রায়হানুল ইসলাম। পরিচয়ের সময় রায়হানুল তার ডাক নাম রাজু বলে জানান ওই ছাত্রীকে। প্রেমের সম্পর্কের সূত্র ধরে রবিবার সকালে ওই ছাত্রীকে সিগারেট কোম্পানি ক্যাদারের পুল এলাকার জনৈক শহিদুল্লাহ মিয়ার ভাড়াটিয়া আলেয়া বেগমের বাড়িতে ডেকে নেন রায়হানুল। সেখানে রায়হানুল ওই ছাত্রীকে ধর্ষণের পর তার আরো কয়েকজন পরিচিত যুবককে দিয়ে ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করান। এতে ওই ছাত্রী অসুস্থ হয়ে পড়ে।

পরে কৌশলে সেখান থেকে মেয়েটি পুরো বিষয়টি পুলিশকে জানায়। রাত সাড়ে ৮টার দিকে হারাগাছ থানা পুলিশ তাকে ওই বাড়ি থেকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায় এবং তার পরিবারকে খবর দেয়। পরে রাত পৌনে ১২ টায় পুলিশ অসুস্থ স্কুলছাত্রীকে রংপুর মেডিকেল কলেজ (রমেক) হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারের ভর্তি করায়।

এ ঘটনায় ওই স্কুলছাত্রীর বাবা ডিবি পুলিশ সদস্য রাজুসহ আরও দু’জনের নাম ‍উল্লেখ করে ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। পুলিশ ওই বাড়ি থেকে ভাড়াটিয়া আলেয়া বেগমকে এবং সুরুভি নামে তার এক সহযোগীকে আটক করে। ঘটনা যাচাইয়ের জন্য অভিযুক্ত এএসআই রায়হানুল ইসলামকে আটক করে পুলিশ।

এ ঘটনায় রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (অপরাধ) আবু মারুফ হোসেন জানান, ধর্ষণের শিকার দাবি করা মেয়েটি প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে রাজু নামে এক পুলিশ সদস্যের কথা জানিয়েছে। তবে ওই রাজু ডিবি পুলিশের এএসআই রায়হানুল কি-না তা নিশ্চিত হতে রায়হানুলকে পুলিশের জিম্মায় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। যেহেতু তার বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে, তাই তাকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

Leave A Reply

Your email address will not be published.