নামাজের জন্য ডাকতে গিয়ে ছেলেকে ফ্যানে ঝুলতে দেখলেন বাবা

মুবতাসিন ফুয়াদ প্রীতম

বগুড়ার শাজাহানপুরে মুবতাসিন ফুয়াদ প্রীতম নামে এক এসএসসি পরীক্ষার্থীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মা-বাবার ওপর অভিমান করে তিনি আত্মহত্যা করেছেন বলে দাবি স্বজনদের।

বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে উপজেলার আড়িয়া ইউনিয়নের কাঁটাবাড়িয়া মধ্যপাড়া গ্রামে নিজ বাড়ি থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়।

প্রীতম মধ্যপাড়া গ্রামের এনামুল হকের ছেলে। তিনি বগুড়া পল্লী উন্নয়ন একাডেমি ল্যাবরেটরি স্কুল অ্যান্ড কলেজের এসএসসি পরীক্ষার্থী ছিলেন। তার বাবা এনামুল হক বগুড়া সদরে যুব উন্নয়ন অফিসে চাকরি করেন। মা ইয়াসমিন বেগম উপজেলার তালপুকুর দাখিল মাদরাসার শিক্ষিকা।

প্রীতমের বাবা এনামুল হক জানান, মঙ্গলবার রাতে ছেলেকে সঙ্গে নিয়ে এশার নামাজ পড়েন। এরপর পরিবারে সবাই মিলে রাতের খাবার খান। রাত ১১টার দিকে ঘরে ঘুমাতে যান প্রীতম। ভোরে ফজর নামাজের জন্য ছেলেকে ডাকতে গিয়ে ঘরের দরজা ও জানালা বন্ধ দেখতে পান। অনেক ডাকাডাকির পরও কোনো সাড়াশব্দ না পেয়ে দরজা ভেঙে ভেতরে ঢুকে ছেলেকে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলতে দেখেন।

প্রতিবেশীরা জানান, প্রীতমকে খুব শাসনের ওপর রাখতেন তার বাবা-মা। লেখাপড়ার চাপ দিতেন তারা। বাইরে বের হতে দিতেন না। মঙ্গলবার রাতে ছেলেকে বাড়ির বাইরে দেখে বকাঝকা করেন বাবা। সঠিক কী কারণে প্রীতম আত্মহত্যা করেছেন তা তারা জানেন না।

শাজাহানপুর থানার ওসি (তদন্ত) নান্নু খান জানান, মা-বাবার ওপর অভিমান করে আত্মহত্যা করেছেন প্রীতম। প্রয়োজনীয় আইনি প্রক্রিয়া শেষে স্বজনদের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে।

নিউজ সোর্স : নামাজের জন্য ডাকতে গিয়ে ছেলেকে ফ্যানে ঝুলতে দেখলেন বাবা

Leave A Reply

Your email address will not be published.