দেহ ব্যবসার অভিযোগে মা-মেয়েসহ ৩ নারী আটক, তিন মাস করে কারাদণ্ড

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি:
দেহ ব্যবসার সংবাদ পেয়ে ঠাকুরগাঁওয়ে এক বাসাবাড়ীতে অভিযান চালিয়ে অসামাজিক কার্যকলাপরত অবস্থায় ৩ জনকে আটক করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে গেছে দুই খদ্দের। আটককৃতরা দীর্ঘদিন ধরে ওই এলাকায় দেহ ব্যবসা চালিয়ে আসছিল বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর।

শুক্রবার বিকেলে সদর উপজেলার দক্ষিণ সালন্দর ইউনিয়নের আরাজী কৃষ্ণপুর ভাঙাপুল নামক এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আটককৃতদের বাড়ি সদর উপজেলার দক্ষিণ সালন্দর ইউনিয়নে ও পঞ্চগড় জেলার বোদা থানায়।

এদিকে আটককৃতরা তাদের দোষ স্বীকার করায় প্রত্যেককে ৩ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করে ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল্লাহ আল মামুন।

এ সময় সালন্দর ইউপি চেয়ারম্যান মাহাবুব আলম মুকুল, সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) পিযুষ, এসআই আব্বাসসহ সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্স উপস্থিত ছিলেন।

মাহবুব আলম মুকুল জানান- বেশ কিছু দিন ধরে সালন্দর ইউনিয়নে গোপনে দেহ ব্যবসা চালিয়ে আসছিলো এই পরিবার। এ নিয়ে তাদের কয়েকবার মৌখিকভাবে সতর্ক করার পরও তারা তা শোনেনি।

পরে এলাকাবাসি সম্প্রতি অসামাজিক কার্যকলাপ বন্ধের দাবিতে মানববন্ধনসহ বিভিন্ন সরকারি দপ্তরে অভিযোগ দাখিল করে। এ অবস্থায় শুক্রবার বিকেলে গোপন সংবাদ পেয়ে সেখানে সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল্লাহ-আল-মামুন সহ সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্স নিয়ে অভিযান চালালে অসামাজিক কার্যকলাপরত অবস্থায় তিনজন মহিলাকে আটক করে পুলিশ। তবে এসময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যায় দুই খদ্দের।

পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতে তাদের দোষ স্বীকার করায় ভ্রাম্যমাণ আদালত তাদের প্রত্যেককে তিন মাস করে বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করে।

এলাকাবাসীর অভিযোগ- তাদের কারণে এলাকায় অশ্লীল কার্যকলাপে যুব সমাজ আক্রান্ত হচ্ছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.