টেক্সটাইলে হঠাৎ আগ্রহ ক্রেতার, বস্ত্রখাতে ব্যবসা কেমন

পুঁজিবাজারে বস্ত্র খাতের কোম্পানিগুলোর শেয়ারের প্রতি হঠাৎ আগ্রহ বেড়েছে বিনিয়োগকারীদের। ক্রেতার আগ্রহ বেড়ে চলায় তালিকাভূক্ত কোম্পানিগুলোর শেয়ারের দর বাড়ার পাশাপাশি এই খাতে লেনদেনের পরিমাণও বাড়ছে।

তথ্যানুসন্ধানে দেখা গেছে, চলতি বছরের এপ্রিল মাস থেকে এই খাতটির শেয়ারের প্রতি বেশি আগ্রহ জন্মেছে ক্রেতাদের। গত এপ্রিলে দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) বস্ত্র খাতে টার্নওভার ছিলো ১.৮০ শতাংশ। রিটার্ণ ছিলো নেগেটিভ এক শতাংশ।

কিন্তু মাত্র দেড় মাসের ব্যবধানে পুঁজিবাজারে এই খাতটিতে টার্নওভার বেড়েছে ৫০৫ গুণ বা ৯.১০ শতাংশ। অর্থাৎ সবশেষ সপ্তাহে বস্ত্র খাতে টার্নওভার হয়েছে ১০.৯০ শতাংশ। আর রিটার্নেও কমেছে নেগেটিভের মাত্রা। অর্থাৎ গেল সপ্তাহে বস্ত্র খাতে রিটার্ন হয়েছে নেগেটিভ ০.৩০ শতাংশ।

সোমবার বাজার বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, লেনদেনে সবগুলো খাতকে পেছনে ফেলে শীর্ষে উঠে এসেছে বস্ত্র খাত। এদিন খাতটিতে মোট লেনদেন হয়েছে ৪০৪ কোটি ২০ লাখ টাকা; যা ডিএসইর মোট লেনদেনের ২১ শতাংশের বেশি।

সোমবার খাতটিতে দর বেড়েছে ৯০ শতাংশ বা ৫৩টি কোম্পানির শেয়ারের। কমেছে পাঁচ শতাংশ বা তিনটি কোম্পানির শেয়ারের দর। অপরিবর্তিত রয়েছে পাঁচ শতাংশ বা তিনটি কোম্পানির শেয়ারের দর।

সংশ্লিষ্টরা বলচেন, মহামারি করোনাভাইরাসের মধ্যেও পোশাকশিল্পে বিদেশি ক্রেতারা বাংলাদেশকে প্রধান্য দিচ্ছে। কারণ হিসেবে বলা হচ্ছে ভারতে করোনার প্রভাব বেশি থাকায় দেশটি থেকে বিদেশি ত্রেকারা অর্ডার বাতিল করে বিকল্পে ঝুঁকছে।

আর বিকল্প রাষ্ট্র হিসেবে রয়েছে ভিয়েতনাম ও বাংলাদেশ। কিন্তু ভিয়েতনামের তুলনায় বাংলাদেশে শ্রম ও মজুরি কম থাকায় বিদেশি ক্রেতারা বাংলাদেশকে গুরুত্ব দিচ্ছেন। আর এর ফলে পুঁজিবাজারে বস্ত্র খাতে বিনিয়োগকারীদের ভাগ্য খুলছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

জানা গেছে, বর্তমানে এই খাতটিতে পরিমাণে অনেক বেশি বিদেশি অর্ডার রয়েছে। আর সেই খবর বিনিয়োগকারীদের মাঝে ছড়িয়ে পড়ায় বস্ত্র খাতের কোম্পানিগুলোর শেয়ারের প্রতি আগ্রহ বাড়ছে বিনিয়োগকারীদের।

পিএলএফএস ইনভেস্টম্যান্টের সিইও আব্দুল মুক্তাদির ঢাকা টাইমসকে বলেন, গতবছর করোনার কারণে আন্তর্জাতিক বাজারে পণ্যের দর বাড়াতে বস্ত্র খাতে ধস নামে। কিন্তু এখন আন্তর্জাতিক বাজার থেকে মালামাল সহজে আনা যাচ্ছে। যে কারণে কোম্পানিগুলোর আয় বেড়েছে, তাদের পিইও ভালো অবস্থানে রয়েছে। ফলে বস্ত্র খাতের কোম্পানিগুলোর শেয়ারের প্রতি বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ বেড়েছে।

তিনি আরও বলেন, অনেকদিন ধরে কোম্পানিগুলোর শেয়ার দর কম রেটে পড়ে আছে। ফলে অন্য শেয়ারের তুলনায় বস্ত্র খাতে শেয়ারের দাম কম। পুঁজিবাজারের ধারা হচ্ছে ঘুরে ঘুরে সেক্টরগুলোর দাম বাড়বে। সেই হিসেবে এখন বস্ত্র খাতের কোম্পানিগুলোর শেয়ারের দর বাড়ছে।

(ঢাকাটাইমস/২১জুন/এসআই/ডিএম)

নিউজ সোর্স : টেক্সটাইলে হঠাৎ আগ্রহ ক্রেতার, বস্ত্রখাতে ব্যবসা কেমন

Leave A Reply

Your email address will not be published.