ইরানের নতুন প্রেসিডেন্টকে নিয়ে যা বললেন এরদোগান


তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোগান। 

ইরানের নতুন প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসিকে অভিনন্দন জানিয়েছেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোগান। 

ইসির বিজয়ের পর শুভেচ্ছা জানিয়ে এরদোগান আশা প্রকাশ করেন, রাইসির হাত ধরে তুরস্ক-ইরান সম্পর্ক আরও উন্নতির দিকে যাবে। পারস্পরিক সহযোগিতা বৃদ্ধির জন্য করোনাভাইরাস মহামারী শেষ হলে ইরানে তুরস্কের একটি উচ্চপর্যায়ের প্রতিনিধি দলসহ সফর করবেন বলে জানান তিনি।

ইরানের নতুন প্রেসিডেন্টের উদ্দেশে এরদোগান আরও বলেন, আপনার প্রেসিডেন্ট থাকার সময়ে আমাদের দুই দেশের সহযোগিতা আরও সুদৃঢ় হবে বলে আমি বিশ্বাস করি। আপনার সঙ্গে আমি কাজ করতে প্রস্তুত। 

এদিকে রাইসিকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মুসলিম বিশ্বের একমাত্র পরমাণু শক্তিধর দেশ পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। এক টুইট বার্তায় ইমরান খান বলেন, আঞ্চলিক শানি্ত প্রতিষ্ঠায় ইরানের সঙ্গে কাজ করতে চায় পাকিস্তান। ইব্রাহিম রাইসির বিজয়ের পর শুভেচ্ছা জানিয়েছে ফিলিসি্তনের হামাস।

ইরানের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ইব্রাহিম রাইসির জয়ে শঙ্কিত হয়ে পড়েছে ইসরাইল। রাইসিকে নিয়ে ইতোমধ্যে গভীর উদ্বেগও প্রকাশ করেছে দেশটির কর্মকর্তারা। বলেছে, ইরানের সবচেয়ে কট্টরপন্থি প্রেসিডেন্ট হচ্ছেন ইব্রাহিম রাইসি। তিনি ইরানের সামরিক পরমাণু কর্মসূচি জোরদারে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। রাইসির ব্যাপারে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের গুরুতর উদ্বেগ থাকা উচিত। ইরানের নির্বাচন নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে ইসরাইলের ঘনষ্টি মিত্র যুক্তরাষ্ট্র। নির্বাচন Èসুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ’ হয়নি বলে দাবি করেছে দেশটির কর্মকর্তারা। যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরাইল ছাড়া বিশ্বের বেশির ভাগ প্রভাবশালী দেশই শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছে। তালিকায় রাশিয়া, তুরস্ক, সিরিয়া, ভারত-পাকিস্তানসহ রয়েছে ইরাক, ইয়েমেন, কুয়েত, কাতার ও সংযুক্ত আরব আমিরাত। রাইসির বিরুদ্ধে নতুন করে মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ তুলেছে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। এমনকি তার বিরুদ্ধে Èমানবতাবিরোধী অপরাধ’র তদনে্তরও আহ্বান জানিয়েছে অধিকার সংস্থাটি। আলজাজিরা ও এএফপি। 
শুক্রবারের নির্বাচনে বড় ব্যবধানে জয়ী হয়েছেন ইব্রাহিম রাইসি। ইরানের অষ্টম প্রেসিডেন্ট হচ্ছেন তিনি। আগামী আগস্ট থেকে ইরানের বর্তমান প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানির স্থলাভিষিক্ত হবেন ৬০ বছর বয়সি রাইসি। নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই তিনি অভিনন্দন ও শুভেচ্ছায় ভাসছেন। শুধু শুভেচ্ছা নয় মানবাধিকার ইসু্যতে কয়েকটি অধিক সংস্থার সমালোচনার মুখোমুখিও হয়েছেন এই রক্ষণশীল নেতা। তিনি এমন সময়ে ক্ষমতায় আসছেন যখন ইরান যুক্তরাষ্ট্র ও পশ্চিমা দেশগুলোর সঙ্গে পরমাণু ইসু্য নিয়ে সৃষ্ট জট ছাড়াতে ব্যস্ত। 
ফলাফল ঘোষণার পরই ইব্রাহিম রাইসিকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। রাশিয়ার তেহরান দূতাবাস থেকে জানানো হয় এ শুভেচ্ছা বার্তা। যেখানে আশা প্রকাশ করা হয় পরস্পর সহযোগিতায় এগিয়ে যাবে রাশিয়া-ইরান সম্পর্ক। 

এক শুভেচ্ছা বার্তায় সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদ আশা প্রকাশ করেন, নতুন প্রেসিডেন্ট রাইসির আমলে দুদেশের সম্পর্ক আরও দৃঢ় হবে।
রাইসির বিজয়ে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ইরাকের প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রী দুজনেই। দেশটির প্রেসিডেন্ট বারহাম সালিহ আশা প্রকাশ করেন, ইরান ও দেশটির জনগণের সঙ্গে ইরাকের সম্পর্ক আগেও ভালো ছিল, নতুন প্রেসিডেন্টের আমলেও সে সম্পর্ক অব্যাহত থাকবে।

টেলিফোনে রাইসিকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ইরাকের প্রধানমন্ত্রী মোস্তফা আল খাদেমি। পরে এক টুইট বার্তায় তিনি বলেন, আঞ্চলিক সন্ত্রাবাদ দমনে ইরানের সাথে কাজ করতে চায় ইরাক। অভিনন্দন জানিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। টুইট বার্তায় মোদি বলেন, নতুন প্রেসিডেন্টকে নিয়ে ভারত-ইরান সম্পর্ক আরও সামনের দিকে এগিয়ে যাবে।

নিউজ সোর্স : ইরানের নতুন প্রেসিডেন্টকে নিয়ে যা বললেন এরদোগান

Leave A Reply

Your email address will not be published.