ভূরুঙ্গামারীতে রাতের আধারে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের বসতবাড়ি দখল

- Advertisement -

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি:
কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারীতে রাতের আধারে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের বসতবাড়ি জবর দখল করেছে একটি প্রভাবশালী মহল। অভিযোগ করেও প্রতিকার না পেয়ে বসতভিটা উদ্ধার ও বিচারের আশায় দ্বারে দ্বারে ঘুরছে ওই অসহায় পরিবারটি।

জানা গেছে, গত বুধবার গভীর রাতে জেলার ভূরুঙ্গামারী শহরস্থ দেওয়ানের খামার গ্রামের মো. মুসলিম উদ্দিনের বাড়িতে অতর্কিত হামলা চালিয়ে ক্রয়কৃত সম্পত্তি জবর দখল করে একই এলাকার জাহাঙ্গীর আলী গং। এছাড়া ওই বাড়িতে থাকা দুই ভাড়াটিয়া পরিবারের আসবাবপত্র ভাংচুর ও বিনষ্ট করে তাদের বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেয়। দিশা না পেয়ে বাড়ির মালিক ও দুই ভাড়াটিয়া নিরাপত্তা চেয়ে ভূরুঙ্গামারী থানায় অভিযোগ করলেও তা আমলে নেয়নি থানা কর্তৃপক্ষ।

সরেজমিনে দেখা যায়, ওই মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের বসতভিটার ৮ শতক জমি দীর্ঘদিন যাবত নিজের দাবি করে দখলের পাঁয়তারা চালাচ্ছিল একই এলাকার প্রভাবশালী জাহাঙ্গীর আলম, জামাল উদ্দিন ও শফিয়ার রহমান গং। এতে ওই মুক্তিযোদ্ধা পরিবার বাদী হয়ে আদালতে মামলা করে। যার পিটিশন নং-৫৭/১৯, তাং-২৪/০৮/১৯। মামলার প্রেক্ষিতে আদালত থেকে উক্ত বিবদমান জমিতে কোনো প্রকার দখল বা নির্মাণ কাজ না করার জন্য নোটিশ দিলে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে গভীর রাতে সংঘবদ্ধভাবে ওই জমি জবরদখল করে।

এ ব্যাপারে বসতভিটার মালিক মুসলিম উদ্দিন জানান, ৩ মাস থেকে আমার ক্রয় করা জমিটি দখলের চেষ্টা করে আসছে এলাকার জাহাঙ্গীর, জামাল ও শফিয়ার। আমি ও আমার ভাড়াটিয়া দুই পরিবারের নিরাপত্তা চেয়ে ভূরুঙ্গামারী থানায় বিষয়টি লিখিত অভিযোগ দিলে ওসি সাহেব উল্টো আমাকে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে এবং বলে আমি কোনো প্রকার আইনি সহযোগিতা দিতে পারব না।

জমি দখলকারী জাহাঙ্গীর ও আলমের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তাদের পাওয়া যায়নি।

এ ব্যাপারে ভূরুঙ্গামারী থানার অফিসার ইনচার্জ ইমতিয়াজ কবির অভিযোগ গ্রহণ না করার বিষয়টি অস্বীকার করেন।

কুড়িগ্রাম অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এসপি পদোন্নতিপ্রাপ্ত) মো. মেনহাজুল আলম বলেন, কেউ অভিযোগ করবে আর ওসি তা গ্রহণ করবে না এটা হতে পারে। অভিযোগ আমলে না নেয়ার বিষয়টি দেখবেন বলে তিনি আশ্বস্ত করেন।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

Leave A Reply

Your email address will not be published.