নিজের স্ত্রীর নাম-ঠিকানাও জানতেন না মামুনুল হক?

- Advertisement -

আজকে নারায়ণগঞ্জে একটি হোটেলে মামুনুল হক এক নারীর সাথে আটক হওয়ার পর বিষয়টি নিয়ে ব্যাপক ধোঁয়াশার সৃষ্টি হয়েছে। ওই নারীকে নিজের ২য় স্ত্রী দাবি করলেও তার নাম ঠিকানা জানতেন না মামুনুল হক! অন্তত কথিত ২য় স্ত্রী ও তার দেওয়া আলাদা জবানবন্দিতে একথা জানা গিয়েছে।

পুলিশ ও মেজিস্ট্রেটের জিজ্ঞাসাবাদে নিজের দ্বিতীয় স্ত্রীর নাম-ঠিকানা সঠিকভাবে বলতে পারেননি হেফাজত নেতা মামুনুল। তিনি আটক হওয়া নারীকে নিজের দ্বিতীয় স্ত্রী, যার নাম আমিনা তৈয়্যেবা, শশুরের নাম : জাহিদুল ইসলাম। শশুর বাড়ি খুলনায়।

কিন্তু ওই নারী পুলিশকে দেওয়া জবানবন্দিতে ওই নারী জানান- তার নাম জান্নাত আরা ঝর্ণা, বাবার নাম- অলিয়ার রহমান, গ্রাম- ফরিদপুর, আলফাডাঙ্গা।

বিস্তারিত ভিডিওতে দেখুন :

মামুনুল ও তার কথিত স্ত্রীর দেওয়া ভিন্ন ভিন্ন তথ্য নিয়ে রহস্য দেখা দিয়েছ। এদিকে মামুনুল হক লাইভে এসে ওই নারীকে তার সাবেক বন্ধুর স্ত্রী বলে দাবি করেছেন। দুই বছর ধরে তাদের সম্পর্ক (বিয়ে করে) বিদ্যমান বলেও জানিয়েছে মামুনুল হক।

অপরদিকে মামুনুল হকের সাথে তার স্ত্রীর ফোনালাপও ফাঁস হয়েছে। যাতে তিনি তার নিজের প্রথম স্ত্রীকে বিষয়টা নিয়ে বাড়িতে এসে কথা বলবেন বলে জানান। এবং কেউ জিজ্ঞেস করলে তার দ্বিতীয় স্ত্রীর ব্যাপারে তিনি আগে থেকেও জানতেন বলে বলতে শিখিয়ে দেন মামুনুল হক। (অর্থাৎ ওই নারীর বিষয়ে জানেন না তার স্ত্রী)

ওই নারী তার স্ত্রী নাকি অন্যের বউ নিয়ে ফুর্তি করতে গেছেন তা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। বন্ধুর সাবেক স্ত্রীর সাথে আটক হওয়া, অডিও ফাঁস, দ্বিমুখী বক্তব্যের পর মামুনুল হককে নিয়ে নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছে খোদ হেফাজত নেতাকর্মীদের মাঝেই।

মামুনুল ও তার স্ত্রীর ফোনালাপ :

 

এরআগে বিকেলে আটক হওয়ার পর মামুনুল হককে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ের রয়েল রিসোর্ট থেকে নিয়ে যান তার ভক্তরা। শনিবার সন্ধ্যার পর মামুনুল হক অবরুদ্ধ থাকার সংবাদ শুনে কয়েকশ মানুষ রিসোর্টটির সামনে এসে জড়ো হয়। এ সময় তারা স্লোগান দিয়ে ভাঙচুর শুরু করে। পরে সেখান থেকে তাকে পাশের একটি মসজিদে নিয়ে যায় তারা।

এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে সোনারগাঁ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি-তদন্ত) তবিদুর রহমান বলেন, রিসোর্টে হামলা চালিয়ে মামুনুল হককে পুলিশের কাছ থেকে ছিনিয়ে নিয়ে গেছে হেফাজতের কর্মীরা।

এর আগে বিকেলের দিকে তাকে রয়েল রিসোর্টের একটি রুম থেকে নারীসহ আটকে অবরুদ্ধ করে রাখে স্থানীয়রা।

Print Friendly, PDF & Email

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

Leave A Reply

Your email address will not be published.